স্টাফ রিপোর্টার

হরিণাকুন্ডু তে দিন দিন আবাদি জমির পরিমান কমছে।ব্যস্থ সময় পার করে লেগেছে পুকুর খনন করার হিড়কি।সরকারি অনুমোতি ছাড়ায় প্রকাশ্যে কৃষি জমির মাটি বিক্রয় করে কাটছে পুকুর।

এই দিকে ব্যস্ত সময় পার করছে করোনা কালীন সরকারী ঘোষিত লকডাউন মানার তাগীত ও জরিমানায় রাত দিন কাজ করে চলেছে হরিণাকুন্ডু উপজেলা প্রশাসন।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে হরিণাকুন্ডু উপজেলা নির্বাহী অফিসার সৈয়দা নাফিস সুলতানা অভিযান পরিচালনা করেন দৌলতপুর ইউনিয়নের দুবলকুড়ে মাঠে। সেখানে সরকারী অনুমোতি ছাড়া পুকুর খনন ও কৃষি জমির শ্রেণী পরিবর্তন করার অপরাধে জাহাঙ্গীর নামের এক ব্যক্তিকে ২০১৩ এর ৫ (২) ধারা এবং ১৫ (১) খ ধারায় অপরাধী কে ২০০০০ / বিশ হাজার টাকা অর্থদন্ড আদায় করে। এবং পুকুর থেকে মাটি কাটা হবে না বলে অঙ্গীকার স্বীকার করে জাঙ্গীর।

হরিণাকুন্ডু উপজেলা নির্বাহী অফিসার সৈয়দা নাফিস সুলতানা জানায অনুমোতি ছাড়া কেও পুকুর খনন করলে তাহার বিরুদ্ধে আইন আনুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। এই অভিযান অব্যহত থাকবে।

আরসিএন ২৪ বিডি.কম / ১৮ এপ্রিল ২০২১
অনলাইন আপডেট : ০৭:২০ পিএম
ক চ জ