কবির চৌধুরি জয়

রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলায় ঈদের কেনাকাটার জন্য শ্বশুরবাড়ি থেকে দাবিকৃত টাকা না দেওয়ায় নববধূকে গলাটিপে হত্যার অভিযোগ উঠেছে অমানুষ এক পাষণ্ড স্বামীর বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ঘাতক স্বামী আব্দুল মোতালেবকে (২৫) আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

জানা যায়, মোতালেব ঐ গ্রামের হোসেন মিয়ার ছেলে।
রবিবার ( ৯মে) সকালে গঙ্গাচড়া উপজেলার সদর ইউনিয়নের নিলকচণ্ডি এলাকায় স্বামীর বাড়ি থেকে গৃহবধূ জেসমিন আক্তারের (২০) মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

জানা যায়, এর আগের দিন শনিবার (০৮ মে) আনুমানিক রাত ১২টার দিকে এ হত্যার ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, প্রায় চার মাস আগে রংপুর সিটি করপোরেশনের ৬নং ওয়ার্ডের বুড়িরহাট সংলগ্ন বাহাদুর সিং এলাকার জয়নাল আবেদীনের মেয়ে জেসমিন আক্তারের সাথে বিয়ে হয় আব্দুল মোতালেবের।

জানা যায়, বিয়ের পর থেকেই স্বামীর শারীরিক অক্ষমতাসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে উভয়ের মাঝেই মনোমালিন্য চলছিল।

এদিকে রমজান মাস শেষে আসন্ন ঈদুল ফিতরের কেনাকাটার জন্য শ্বশুরবাড়ি থেকে পাঁচ হাজার টাকা দাবি করেন জেসমিন এর স্বামী মোতালেব।কিন্তু শশুরবাড়ি থেকে তাকে এক হাজার টাকা পাঠানো হয় ঈদের কেনাকাটার জন্য।

এ নিয়ে শনিবার আনুমানিক রাতে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। হাতাহাতির একপর্যায়ে উত্তেজিত হয়ে স্বামী মোতালেব তার স্ত্রী জেসমিনের গলাটিপে হত্যা করেন বলে জানা যায়।

রবিবার সকালে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায় বলে জানা যায়।মরদেহ উদ্ধার এর সময় এসময় ঘাতক স্বামী মোতালেব আটক করে পুলিশ।

এ ঘটনায় নিহত জেসমিনের ভাই বাদী হয়ে থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন বলে জানা যায়।

এ বিষয়টি নিয়ে গঙ্গাচড়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ সুশান্ত কুমার সরকার রংপুর ক্রাইম নিউজকে বলেন, প্রাথমিকভাবে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী ঈদ কেনাকাটার টাকা নিয়ে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে এ ঘটনা ঘটে বলে ধারনা করা হচ্ছে । ইতিমধ্যে খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে মরদেহ মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের পরেই আসলে সঠিক তথ্য জানা যাবে। এ বিষয়ে গভীরভাবে তদন্ত করা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

অনলাইন আপডেট : ৯ মে ,২০২১
আরসিএন২৪বিডি.কম
কবির চৌধুরি জয়