রংপুরে নগরীর ঈদগাহপাড়ায় পুলিশি নির্যাতনে রিকশা চালক নাজমুল ইসলামের মৃত্যুর ঘটনায় দোষিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে নগরীতে চলছে আধাবেলা অটোরিকশা ও ভ্যান চালকদের ধর্মঘট। 

শনিবার (২৬ ডিসেম্বর) সকাল থেকে নগরীর বিভিন্ন পয়েন্টে চালকরা অবস্থান নিয়ে পিকেটিং করছে।  এখন পর্যন্ত কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

নগরীর শাপলা চত্বর, বাস টার্মিনাল, লালবাগ মর্ডান মোড়, সাতমাথা, জাহাজ কোম্পানী মোড়সহ বিভিন্ন স্থানে অবস্থান নেন অটোরিকশা ও ভ্যান শ্রমিক ও চালকরা। 

তারা অটোরিকশা ভ্যান আসামাত্রই সেগুলো থেকে যাত্রীদের নামিয়ে দেয়।  অনেক জায়গাতেই চাকার হাওয়া ছেড়ে দিতেও দেখা গেছে।  এ কারণেই সকালে উঠেই চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন অফিসে যাওয়া ও কাজে যাওয়া যাত্রীরা। 

অন্যদিকে নগরীর বিভিন্ন পয়েন্টে বিপুল পরিমাণ পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে রাখতে।  

রংপুর রিকশা-ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক শ্যামল কান্তি রায় বলেন , নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যা করে নাজমুলকে ওই পুলিশ সদস্য ও তার পরিবারের লোকজন ফাঁসিতে ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যার প্ররোচনার মামলা নিয়েছে। এই মামলা আমরা মানি না। অবিলম্বে হত্যা মামলা রুজু করে হাসান তার স্ত্রী সুফিয়া বেগম সাথী এবং দালাল কাদেরকে সর্বোচ্চ শাস্তি দিতে হবে। ধর্মঘট দুপুর দুইটা পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে।