রৌমারীতে ছোট ভাইয়ের কাঠের আঘাতে বড় ভাই নিহত

24

কুড়িগ্রাম (প্রতিনিধি): কুড়িগ্রামের রৌমারীতে ছোট ভাই আব্দুল জলিলের দোকানের ফ্রিজে ঈদের মাংস রাখা নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ছোট ভাইয়ের হাতে থাকা কাঠের আঘাতে বড় ভাই নইমুদ্দিন (৫৫) নিহত হয়েছেন।

গতকাল বুধবার ( ২১ জুলাই) সন্ধ্যা ৭টার দিকে উপজেলার বন্দবেড় ইউনিয়নের টাপুরচর (হামিদপুর) এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।আব্দুল জলিল ও নিহত নইমুদ্দিন উভয়ই হামিদপুর গ্রামের মৃত হজরত আলীর ছেলে।

এ ঘটনায় নিহত নইমুদ্দিনের মেয়ে মর্জিনা খাতুন রৌমারী থানায় তাঁর চাচা আব্দুল জলিলসহ চার জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেছেন। পরে অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত আব্দুল জলিলকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানাযায়, টাপুর চর গ্রামে ফ্রিজে মাংস রাখা নিয়ে জলিল ও খলিল দুই ভাইয়ে মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে হাতাহাতিও হয়। এরই এক পর্যায়ে বড় ভাই নইমুদ্দিন এসে মাংস রাখতে না দেয়ায় আব্দুল জলিলকে গালাগালি করে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে জলিল দোকানে রাখা কাঠ দিয়ে নইমদ্দিনকে উপর্যপুরি আঘাত করলে সে ঘটনাস্থলেই নিহত হয়। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

আরও জানা যায়, নিহত নইমুদ্দিন ও আব্দুল জলিল সৎভাই ছিলেন। তাদের দুইজনের মধ্যে পুর্ব থেকেই জমাজমি নিয়ে দ্বন্দ চলে আসছিল।

রৌমারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মন্তাছের বিল্লাহ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, নিহতের মেয়ে তার বাবা হত্যার ঘটনায় ৪ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেছেন। এ ঘটনার অভিযুক্ত নিহতের ছোট ভাই আব্দুল জলিলকে ঘটনাস্থল থেকে আটক করা হয়েছে। এছাড়া মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

আরসিএন২৪বিডি. কম / ২২ জুলাই ২০২১

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here