স্টাফ রিপোর্টার


রংপুর বিভাগের গাইবান্ধায় সুদের টাকা দিতে না পারায় ভিটেমাটি হারিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন কোব্বাস আলী নামে এক বাসচালক।

সোমবার সন্ধ্যায় গাইবান্ধা সদর উপজেলার খোলাহাটি ইউনিয়নের রথেরবাজার (জেলাল পাড়া) গ্রাম থেকে মরদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ।

কোব্বাস আলী জেলাল পাড়া গ্রামের আজিজার রহমান ছেলে। তিনি ঢাকাগামী শ্যামলী পরিবহনের নৈশ কোচের চালক ছিলেন। স্থানীয়রা জানায়, দশানি গ্রামের দাদন ব্যবসায়ী সোনা মিয়ার কাছে সুদে ৩০ হাজার টাকা নেন কোব্বাস আলী। দেড় বছর পর কোব্বাসের কাছে এক লাখ ২০ হাজার টাকা দাবি করেন সোনা মিয়া।

টাকা দিতে না পারায় শনিবার কোব্বাসকে বেধড়ক মারপিট করেন সোনা। টাকার জন্য কিছুদিন আগে কোব্বাসের একমাত্র ভিটেমাটি জোরপূর্বক স্ট্যাম্পেও লিখে নেন তিনি।

কোব্বাসের পরিবারের অভিযোগ, স্থানীয় ইউপি সদস্যসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে সম্প্রতি এ নিয়ে সালিশ হয়। সেই সালিশে লাভের অংশ বাদ দিয়ে আসলের ৩০ হাজার টাকা দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়। সালিশ বৈঠকে সোনা মিয়া সব কিছু মেনে নেন। কিন্তু তারপরেও শনিবার লাভের টাকার জন্য কোব্বাসকে চাপ দেন তিনি।

গাইবান্ধা সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) বাপ্পি কুমার বলেন, ‘মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য জেলা হাসপাতাল মর্গে নেয়া হবে। এ ঘটনায় থানায় অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।’

আরসিএন ২৪ বিডি.কম / ২৭ এপ্রিল ২০২১
অনলাইন আপডেট : ১২:৩০ পিএম
ক চ জ