তাঁতশ্রমিকের ঘরে ২০ মণ ওজনের ‘মানিক’

61

দুই বছর পূর্বে পশুর হাট থেকে ব্রাহামা জাতের ১ টি ষাঁড় কিনে সন্তানের মত লালন পালন করার প্রত্যয়ে তাঁত শ্রমিক শামীম নাম দিয়েছিলেন ‘মানিক’।

দুই বছর পরিচর্যায় ষাঁড়টির ওজন এখন প্রায় বিশ মণ। সাদা রঙের ষাঁড়টির নামকরণ যেন সার্থক হয়েছে।

এবারের কোরবানি ঈদে সিরাজগঞ্জের সেরা আকর্ষণ ‘মানিক। ষাঁড়টির মালিক মো: শামীম পেশায় একজন তাঁত শ্রমিক। দুই বছর পূর্বে সিরাজগঞ্জ পাঙ্গাসী হাট থেকে ষাঁড়টি কিনেছিলেন তিনি। প্রায় বিশ মণ ওজনের ষাঁড়টির তিনি দাম চাচ্ছেন ৬ লক্ষ টাকা।

তাঁত শ্রমিক শামীম রেজা সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার বহুলী ইউনিয়নে মুক্তারগাঁতী গ্রামে। তিনি জানান, ষাঁড়টি কেনার পর থেকে নিজের সন্তানের মতো করে লালন-পালন করেছেন তিনি। প্রতিদিন অন্যান্য খাবারের পাশাপাশি আপেল, কমলা ও মাল্টা খেতে দেন এই ষাঁড়টিকে। নিয়মিত খাবারের মধ্যে আছে ভুসি, সুজি ও খুদের ভাত। প্রতি মাসে এই ষাঁড়টিকে সাড়ে ৩ মণ সুজি, সাড়ে ৩ মণ ভুসি ও ৩ মণ খুদের ভাত খেতে দিতে হয়।

কামীম রেজা জানান, কেনার পর থেকে এখন পর্যন্ত খাবার ও চিকিৎসাসহ কালো হাতির পেছনে তিনি খরচ করেছেন প্রায় ২.৫ লাখ টাকা। গরমের মধ্যে প্রতিদিন ২ থেকে ৩ বার গোসল করাতে হয় ষাঁড়টিকে। গরম সহ্য করতে পারে না একেবারেই। তাই বিদ্যুৎ চলে গেলে চার্জার ফ্যান চালাতে হয়।
তিনি আরো বলেন, অনেক যত করে লালন-পালন করেছি আমাদের মানিককে। মনমতো দাম পেলে বাড়ি থেকেই বিক্রি করব। আর যদি ভালো দাম না পাই, তবে হাটে নিয়ে গিয়ে বিক্রি করবে।

শামীমের স্ত্রী রুখসানা বেগম বলেন, আমার স্বামী একজন তাঁত শ্রমিক। কালো হাতিকে নিজের সন্তানের মতো করে লালন-পালন করেন তিনি। ১ বছরে ষাঁড়টি আমাদের কাছে খুবই আপন হয়ে গেছে। ওকে বিক্রি করলে খুবই কষ্ট লাগবে। কিন্তু বিক্রি তো করতেই হবে। সেক্ষেত্রে যদি ভালো দাম পাই, তা হলে কষ্ট কিছুটা কমবে।

আমাদের করোনাবিষয়ক ওয়েবসাইড:coronavirus.rcn24bd.com
আমাদের ইংলিশ ওয়েবসাইড :uk.rcn24bd.com

০৭ জুলাই, ২০২১ (বুধবার )
আরসিএন ২৪বিডি ডট কম

আমাদের সকল নিউজ :RCN24bd.com

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here