বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের পর প্রায় পৌনে ছয় বছর নির্বাসিত জীবন কাটিয়ে দেশে ফেরার দিনটি স্মরণ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন ইতিহাস আর কেউ কোনো দিন বিকৃতির চেষ্টা করতে পারবে না ।

আজ (১৭মে ) সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বৈঠকে যোগ দেন এবং এ সময়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন।

বৈঠকের শুরুতেই তিনি বলেছেন ‘১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতাকে সপরিবারে হত্যার পর বাংলাদেশের ইতিহাস বিকৃত করার যে চেষ্টা করা হয়েছিল, এরকম কাজ এ দেশে আর কেউ করতে পারবে না।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৈঠকে আরো বলেন, ‘অনেক ঝড় ঝাপ্টা উপেক্ষা করে বাংলাদেশ যেখানে পৌঁছেছে, সেই অগ্রযাত্রা অব্যাহত থাকবে। আজকে আমরা একটি উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠা পেয়েছি। শুধুমাত্র আমাদের দেশের ভেতরেই না, বাইরেও আমরা অনেক ঝড় ঝাপ্টা পার করেই আজ আমরা এই জায়গায় আসতে পেরেছি।

"প্রধানমন্ত্রী "

তিনি আরো বলেন যাই হোক, আমি এতটুকু বলতে পারি “যে আল্লাহ আমাদের সব সময় সহযোগিতা করেন এবং আল্লাহ কিছু কাজ দেন মানুষকে আর সেই কাজটা যতক্ষণ শেষ না হয়, ততক্ষণ কিন্তু আল্লাহ আমাদের রক্ষা করেন।’

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান ও তার পরিবারের সদস্যদের যেদিন হত্যা করা হয়, সে সময় বিদেশে থাকার কারণে প্রাণে বেঁচে যান শেখ হাসিনা ও ছোট বোন শেখ রেহানা।

ভারতের নয়া দিল্লি থেকে১৯৮১ সালের ১৭ মে দেশে ফেরেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জ্যেষ্ঠ কন্যা শেখ হাসিনা।

তিনি দেশে ফিরলে প্রতিকূল পরিস্থিতি উপেক্ষা করে সেদিন লাখো জনতাতেজগাঁও আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে তাকে স্বাগত জানায়।

আরসিএন ২৪ বিডি.কম
১৭ মে ২০২১

আরসিএন ২৪ বিডি .কম / ১৭ মে ২০২১