১৬ দিন পরে মরদেহ কবর থেকে উত্তোলন

882

রংপুর : রংপুর নগরীর আমাশু কুকরুল দক্ষিন পাড়ার সিটি কলেজের ছাত্রী ইশরাত জাহান মিম(১৯) এর মরদেহ ১৬ দিন পর আদালতের নির্দেশে কবর থেকে উত্তোলন করেছে প্রশাসন।

বুধবার (২৩ জুন) বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে নগরীর মুন্সিপাড়া কবরস্থান থেকে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মালিহা খানমের উপস্থিতিতে পুলিশ মরদেহ উত্তোলন করে ময়না তদন্তের জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজে পাঠানো হয়েছে। এ সময় মিমের স্বজনরা সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

পুলিশ ও নিহতের পারিবারিক সূত্রমতে, গত ৭ জুন তারিখে ইশরাত জাহান মিমকে বাসা থেকে প্রতিবেশী বান্ধবী আইভি ডেকে নিয়ে যায়। এরপর অনেক খোঁজাখুঁজির পরেও তার কোন সন্ধান মেলেনি। এই ঘটনার পরের দিন ৮ জুন বাড়ির অদুরে পরিত্যাক্ত একটি পুকুর থেকে মিমের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ সময় নিহতের মরদেহ ময়না তদন্ত না করেই দাফন করা হয়। স্বজনদের অভিযোগ মিমকে হত্যা করা হয়েছে। নিহত মিমের মা নার্গিস বেগম অভিযোগ করে বলেন এ ঘটনায় পশুরাম থানা পুলিশ কোন মামলা নেয়নি।

১৬ দিন পরে মরদেহ কবর থেকে উত্তোলন

পরবর্তীতে তিনি রংপুর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করেন। মামলার প্রেক্ষিতে আদালত মরদেহ কবর থেকে উত্তোলন করে ময়না তদন্তের নির্দেশ দেন। আদালতের নির্দেশ মোতাবেক আজ বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে নগরীর মুন্সিপাড়া কবরস্থান থেকে নিহত কলেজ ছাত্রী মিমের মরদেহ উত্তোলন করে ময়না তদন্তের জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে নিহত মিমের বান্ধবী আইভি, আইভির ভাই মুন্না ও তার বন্ধু আল আমিন টাইগারকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

এ মামলার তদন্তকারী পুলিশ কর্মকর্তা এস আই আলতাফ হোসেন জানান, ময়না তদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলেই হত্যার কারন নিশ্চিত হওয়া হবে। তবে নিহত মিমের পরিবারের দাবী প্রথমে আইভির ভাই মুন্না ও তাঁর বন্ধু আলামিন টাইগার ধর্ষণ করে এবং পরে তাকে হত্যা করে বাড়ীর পাশের পরিত্যক্ত পুকুরের পানিতে ছাত্রী মিমের মরদেহ ভাসিয়ে দেয়।

আরসিএন২৪বিডি.কম / ২৩ জুন ২০২১
এ এফ