ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি হলেও আমাদের দেশের কৃষকেরা ক্ষতিগ্রস্ত হবে না এমনি তথ্য জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, ‘ভারত রফতানি বন্ধ করলে পেঁয়াজ সংকটে পড়ে দেশ।

তখন অন্য দেশ থেকে আমদানি সহজ করতে পেঁয়াজের ওপর ধার্য করা ৫ শতাংশ শুল্ক মুক্ত করে সরকার। তবে সেটি আবারও আরোপ করা হবে। এ বিষয়ে কৃষি মন্ত্রণালয় ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সঙ্গে বৈঠক করে আমরা শুল্ক আরোপের পরামর্শ দেবো।’রবিবার (০৩ জানুয়ারি) সচিবালয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে দ্রব্যমূল্য নিয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন । এসময় মন্ত্রী দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি নিয়ে সাংবাদিকদের নানা প্রশ্নের জবাব দেন। বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে শক্ত অবস্থানে যাচ্ছি। চাল ও তেলের দাম বৃদ্ধিতে অসাধু ব্যবসায়ীরা সুযোগ নেয়ার চেষ্টা করছে। অসাধু ব্যবসায়ীরা যেন সুযোগ না নেয় সেজন্য জনমত সৃষ্টি করতে হবে।’টিপু মুনশি আরও বলেন, ‘আন্তর্জাতিক বাজারে ভোজ্যতেলের দাম বেড়েছে। সেজন্য আমাদের দেশেও দামের প্রভাবটা পড়েছে। সবসময়েই কিছু অসাধু ব্যবসায়ী দাম বৃদ্ধির সুযোগ নেয়ার চেষ্টা করে।’সাংবাদিকদের অপর এক প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘দেশে চালের দাম বেড়েছে। বর্তমানে আমাদের হাতে পর্যাপ্ত পরিমাণে মজুদ নেই। ফলে মজুদ বাড়ানোর জন্য আমরা আমদানির সিদ্ধান্ত নিয়েছি। ইতোমধ্যেই ৫০ হাজার টন করে তিনটি কনসাইনমেন্টের এলসি ওপেন করা হয়েছে। আরও দুটি ওপেন করা হবে।’‘বাজারে অনেক আইটেমের দাম কমে গেছে। শাকসবজি, আলুর দাম নিয়ন্ত্রণে আছে, পেঁয়াজের দামও কমে আসছে’ বলে দাবি করেন বাণিজ্যমন্ত্রী। দ্রব্যমূল্য নিয়ে বিএনপির কর্মসূচির বিষয়ে টিপু মুনশি বলেন, ‘বিএনপি রাজনীতি করছে। মূলত বাজারে নিত্যপণ্যের দাম যত বেশি বেড়েছে, তার চেয়ে একটা পলিটিক্যাল প্রোগ্রাম দেয়ার জন্যই তারা দিয়েছে। পেঁয়াজের দাম যখন ২০০ টাকায় উঠেছে তখন তারা কিন্তু রাজনৈতিক কর্মসূচি দেয়নি। এখন দিচ্ছে। নতুন বছরে নতুন রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড হিসেবেই তারা এ কর্মসূচি দিচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানির কারণে আমাদের প্রান্তিক কৃষকেরা যাতে ক্ষতির মুখে না পড়ে সে বিষয়টি বিবেচনায় রেখে ফের শুল্ক আরোপের সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমরা।’পেঁয়াজ রফতানিতে ভারতের নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া প্রসঙ্গে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘ভারত তার স্বার্থের কথা ভেবে কখনও কখনও খুলে দিচ্ছে, আবার কখনও কখনও বন্ধ করে দিচ্ছে। এখন আবার তারা খুলে দিয়েছে। গত বছর মার্চের মাঝামাঝি তারা বন্ধ করে দিয়েছিল। তবে আমরা আমাদের প্রান্তিক কৃষকদের স্বার্থ রক্ষা করবো। ভোক্তাদের বিষয়টাও দেখবো।’

আরসিএন ২৪বিডি. কম / জিএমএম

৩ জানুয়ারি ২০২১, সময় :৬:৫০ পিএম