দিনাজপুরে ইউএনও ওয়াহিদা খানমের অপারেশন করতে যাচ্ছেন চিকিৎসকরা

9

দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) সরকারি বাসভবনে হামলা চালায় দুবৃত্তরা। এসময় ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানো হয় ইউএনও ওয়াহিদা খানমকে।
তবে সরকারি কোয়ার্টারে কিভাবে হামলা হলো এ নিয়ে চলছে আলোচনা। তবে ঘটনার সময় ভবনের প্রহরীকে বেঁধে রাখা হয় বলে জানা গেছে।

দিনাজপুর-৬ আসনের সংসদ সদস্য গণমাধ্যমকে বলেন, এটি কোনো ডাকাতির ঘটনা নয়। তাঁকে মেরে ফেলার উদ্দেশ্যেই এই ঘটনা ঘটেছে বলে আমার ধারণা।

এদিকে ঘোড়াঘাট থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, আজ ভোররাত ৩টার দিকে উপজেলা পরিষদের ইউএনওর বাসার টয়লেটের ভেল্টিলেটর ভেঙে দুর্বৃত্তরা বাসায় প্রবেশ করে। পরে ইউএনও ওয়াহিদাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে মাথায় আঘাত করা হয়। এসময় তার বাবা এগিয়ে আসলে দুর্বৃত্তরা তাকেও আঘাত করে পালিয়ে যায়।

জানা যায়, রাত আড়াইটার পর একদল দুর্বৃত্ত উপজেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তার আবাসিক ভবনে ঢুকে ইউএনও ওয়াহিদা খানমকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে।
এ সময় তার চিৎকারে তার সঙ্গে থাকা পিতা ছুটে এসে মেয়েকে বাঁচানোর চেষ্টা করলে দুর্বৃত্তরা তাকেও আহত করে। পরে অন্য কোয়ার্টারের বাসিন্দারা টের পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়।
এ সময় তাদেরকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে গোড়াঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাদেরকে রংপুরে প্রেরণ করা হয়। ইউএনও ওয়াহিদা খানমকে রংপুর ডক্টরস ক্লিনিকে আইসিইউতে ভর্তি করা হয়।

এদিকে তার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে এয়ার অ্যম্বুলেন্সে ঢাকায় আনা হয়েছে। দিনাজপুর-৬ আসনের সংসদ সদস্য শিবলী সাদিক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, উপজেলার নির্বাহী অফিসার ওয়াহিদা খানমের উন্নত চিকিৎসার জন্য সব ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। তাকে দুপুর আড়াইটার মধ্যে ঢাকার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় হাসাপাতালে নেওয়া হবে।
সর্বশেষ আপডেট :দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলার ইউএনও ওয়াহিদা খানমের মাথায় আঘাতের কারণে হাড় ভেঙে তা মস্তিষ্কে ঢুকে গেছে। তার এক সাইড অবশ হয়ে আছে। এই অবস্থায় তার জটিল অপারেশন করতে যাচ্ছেন চিকিৎসকরা। আজ (বৃহস্পতিবার) রাত ৯টায় তার অস্ত্রোপচার হবে।

ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অব নিউরোসায়েন্সেস ও হাসপাতালের যুগ্ম পরিচালক অধ্যাপক ডা. মো. বদরুল আলম এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

বৃহস্পতিবার রাত পৌনে ৮টার দিকে হাসপাতাল সূত্র জানিয়েছে, ইউএনও ওয়াহিদা খানমের খুলি মস্তিষ্কের ভেতরে ঢুকে গেছে। এখনও অবস্থা স্থিতিশীল নয়। স্থিতিশীল না হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। কারণ, এখন যেভাবে খুলি ভেতরে ঢুকে গেছে তা সরাসরি খুলতে গেলে জ্ঞান আর নাও ফিরতে পারে। এসব দিক বিবেচনা করেই অপারেশন করতে অপেক্ষা করতে হচ্ছে।

আরসিএন ২৪বিডি.কম/ ৩ সেপ্টেম্বর ২০২০