সহবাসের ৭টি উপকারিতা ও সঠিক নিয়ম

3478

ইসলামে মানব জীবনের সকল বিধি-বিধান দেওয়া রয়েছে। স্বামী-স্ত্রীর যৌন মিলনের জন্যে রয়েছে সঠিক নিয়ম । কিভাবে সহবাস করতে হবে, কিভাবে সহবাস করা হারাম, কখন সহবাস করা নিষিদ্ধ ইত্যাদি নিয়ম বা পদ্ধতিগুলো কুরআন এবং হাদিসে বর্ণনা করা হয়েছে।
আর সহবাস কখন কিভাবে করলে এর থেকে উপকার পাওয়া যাবে এসব নিয়ে আলোচনা করা হলো।

বিশেষজ্ঞদের মতে ভোর বেলায় সহবাসের ফলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি ছাড়াও অনেক উপকার পাওয়া যায়।

রাত বা অন্য সময়ের চেয়ে ভোরে মিলনের ফলে হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা অনেকটাই কমে যায় বলে জানান বিশেষজ্ঞরা। এরই সাথে সাথে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও অনেক বেড়ে যায়।

এসময় নারী এবং পুরুষ উভয়েরই যৌন হরমোন গুলির মাত্রা থাকে তুঙ্গে। তবে এসময় পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকতে হয়। তাই ঘুমাতে যাওয়ার সময় পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন হওয়া খুবই জরুরি।

ভোরবেলা মিলন শরীরে অ্যান্টিবডি গঠন করতে সাহায্য করে, শরীরের রক্ত সঞ্চালন সঠিক থাকে।

এছাড়া সকালের মিলনের ফলে আর্থ্রাইটিস ও মাইগ্রেনের মত রোগ কম হয়।

যৌন মিলনের ফলে কি কি উপকার পাওয়া যায়।

১. যে নারীরা প্রায়ই যৌন মিলন করেন তাদের স্মৃতিশক্তি প্রখর হয়। আর্কাইভ অফ সেক্সুয়াল বিহেভিওর এর এক সাম্প্রতিক গবেষণায় দেখা গেছে, নারীরা যতবেশি যৌন মিলন করেন ততই তারা কোনো শব্দ মুখস্থ করার ক্ষেত্রে পারদর্শী হন। তাদের স্মৃতিশক্তি প্রখর হয়।

২. নিয়মিত যৌন মিলন রক্তচাপ ঠিক রাখার জন্য ভালো। সাথে সাথে এটি দুশ্চিন্তা রোধ করতেও সমান কার্যকরী।

৩. ভালো যৌন স্বাস্থ্য মানে উন্নত শারীরিক স্বাস্থ্য। সপ্তাহে একবার কিংবা দুবার নিয়মিত যৌন মিলনে শরীরে IGA অ্যান্টিবডির স্তর বৃদ্ধি করে, যা আপনার বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে দেয়।

৪. ৩০ মিনিটের শারীরিক মিলনে ৮৫ ক্যালরি পর্যন্ত দহন করতে পারে। এরকম ৪২ বার মিলনে মোট ৩৫৭০ ক্যালরি দহন করতে সমর্থ, যা ১ পাউন্ড ওজন কমানোর জন্য যথেষ্ট। সুতরাং ওজন কমানোর জন্য যৌন মিলন খুবই উপকারী।

৫. নিয়মিত যৌন মিলন আপনার আয়ু বাড়ায়। এর মাধ্যমে শরীরের সব অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ এবং সব তন্ত্র খুব ভালো ভাবে কাজ করে। কারণ শারীরিক কার্যকলাপ শরীরের বিভিন্ন কোষের মধ্যে অক্সিজেনের মাত্রা বৃদ্ধি করে বিভিন্ন অঙ্গগুলিকে সচল রাখতে সাহায্য করে।

৬. শারীরিক মিলনের ফলে মাথা এবং হাড়ের জয়েণ্টের ব্যাথার ক্ষেত্রে আরাম পাওয়া যায়। অর্গাজমের আগে অক্সিটোসিন হরমোনের স্তর সামান্য থেকে পাঁচ গুন বেড়ে যাওয়ায় এণ্ড্রোফিন হরমোন নিঃসৃত হয় ফলে মাথা ব্যাথা, মাইগ্রেন আর আর্থারাইটিস এর ব্যাথা থেকে আরাম পাওয়া যায়।

৭. মানসিক শান্তি আনার ক্ষেত্রে নিয়মিত শারীরিক মিলনের অভ্যাস সবচেয়ে ভালো। কারণ নিয়মিত শারীরিক মিলনের ফলে মন উত্‍ফুল্ল থাকে ফলে মানসিক অশান্তি কম হয়।

আরসিএন ২৪ বিডি.কম / ২৩ অক্টোবর ২০২১

6 Sex ‘Rules’ For People In Relationships