কবির চৌধুরি জয়

গায়ে পড়ে বন্ধুত্ব করা যাদের স্বভাব নয় তাদের পছন্দ করে মেয়েরা। শুধু মেয়ে কেন, কারও গায়ে পড়ে আলাপ করাটা এদের অপছন্দনীয়। এমনকি কেউ আলাপ করতে এলেও নিজের মধ্যেই গুটিয়ে থাকেন তারা। ফলে তাদের পরিচিত মানুষের পরিধি খুবই ছোট আর সেই পরিধিতে মেয়েদের সংখ্যা আরও কম বলে ধারনা করা হয়। এসব ছেলেদের মেয়েরা পছন্দ করে।

কোনও মেয়েকে নিজের প্রেমে পটাতে গেলে একটুত কৌশল, একটু ছলাকলা জানতেই হবে। বলাই বাহুল্য , ভালো ছেলেরা এসব থেকে একশত হাত দূরে থাকে এবং এগুলো বোঝে না। প্রেমের সপ্ত ছলকলা এদের রপ্তের বাইরে থাকে।

ভালো ছেলেরা কোন মুহূর্তে কী কাজ করবে, এটি সহজেই ধারণা করা যায়। অন্যদিকে খারাপ ছেলেদের ক্ষেত্রে বিষয়টি ভিন্ন। আর এই বিগড়ে যাওয়া ছেলেদের প্রেমিকা হওয়া মেয়েদের কাছে যেন একটা বড় চ্যালেঞ্জ। আবার বিগড়ে যাওয়া ছেলেদের শুধরাতে মেয়েরাই তাদের ভালোবাসে। ঐ ছেলেটিকে নিজের মতো করে তৈরি করাই যেন মেয়েদের একটি বড় মিশন হয়ে দাঁড়ায়। কিন্তু ভালো ছেলেদের মধ্যে ঠিক ঠাক করার আর কিছুই নেই।

জীবনে অনেক বড় কিছু করতে হবে এমন সপ্ন অনেক তরুনের। এই ভেবে পড়াশোনা এবং ক্যারিয়ারে বেশি মনোযোগী হয় ভালো ছেলেরা। কিন্তু মেয়েরা চায় তার প্রেমিক সবকিছু ছেড়ে দিয়ে তাদের সাথে ঘুরে বেড়াক। ভালো ছেলেরা এসব করে না বলে মেয়েরাও তাদের থেকে দূরত্ব বজায় রাখেন।

প্রেমের সুসম্পর্ক গড়ে তোলার জন্য অল্প-স্বল্প নির্দোষ মিথ্যা থাকবেই। নিজের সম্পর্কে একটু বেশী বাড়িয়ে বলা কিংবা নিজেকে হিরো সাজানো এগুলি কোনও সিধেসাধা ছেলের পক্ষে কখনো সম্ভব নয়। আর এই সব করতে না-পারলে কোন মেয়েই আবার তাদের পাত্তা দেয় না।

‘আলাপের পর ১ম ডেটিংয়ে গিয়েই প্রেমিকার ওপর অধিকার ফলালে মেয়েরা কখনোই সে সঅব ছেলেদের পছন্দ করে না। আর নিজের স্বপ্নের মেয়ের খোঁজ পেলেই ভালো ছেলেরা তাদের নিয়ে খুব সিরিয়াস এবং পজেসিভ হয়ে যায়। প্রেমিকার যত্ন নিতে গিয়ে অনেক সময়ই ছেলেরা অধিকার ফলাতে শুরু করে। যার ফলে সম্পর্ক শুরু হওয়ার আগেই সেখানে ফুলস্টপ লাগিয়ে দেয় প্রেমিকা।

আরসিএন ২৪ বিডি.কম / ১০ জুন ২০২১
কবির চৌধুরি জয়