স্টাফ রিপোর্টার
ইসরায়েল ও হামাসের মধ্যে যুদ্ধবিরতি চুক্তির ১ম ধাপে মানবিক সহায়তা এসে পৌঁছেছে গাজা উপত্যকায়। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এর জানানো প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে।

হাজার হাজার ফিলিস্তিনি এরই মধ্যে নিজেদের বাড়ির পরিস্থিতি দেখার জন্য ছুটে আসছে বলে লক্ষ করা গেছে । তবে হাজার হাজার ঘরবাড়ি একেবারে ধ্বংস হয়ে গেছে বলে জানা গেছে । কর্মকর্তারা বলছেন, ক্ষতিগ্রস্ত বাড়িগুলো মেরামত করতে এক বছরের বেশি সময় লেগে যাবে বলে ধারনা করছেন তারা।

গাজার বিভিন্ন সরকারি কর্মকর্তারা বলছেন, গত এগারো দিনে ইসরায়েলি হামলায় যে পরিমান ক্ষতি হয়েছে, তাতে ভবনগুলো পুনরায় আবার নির্মাণ করতে বেশ কয়েক বছর সময় লেগে যাবে বলে ধারনা করছেন তারা।

পরিস্থিতি বিবেচনা করে গাজায় আহত ব্যক্তিদের সরিয়ে ফেলার জন্য করিডোর তৈরি করার আহ্বান জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলে জানা যায়।
টানা এগারো দিনের এই সংঘর্ষে ২৫০ জনেরও বেশি মানুষ নিহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।

এদিকে যুদ্ধবিরতির পর গাজা পুনর্গঠনে অবদান রাখার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলে জানা গেছে। এরমধ্যেই মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি প্রতিষ্ঠায় ইসরায়েল ফিলিস্তিন এই দুই রাষ্ট্রর সমাধানই একমাত্র পথ বলে উল্লেখ করেছেন জো বাইডেন।

জানা গেছে গতকাল ২১ মে শুক্রবার হোয়াইট হাউসে বক্তৃতাকালে জো বাইডেন গাজা পুনর্গঠনে সমন্বিত উদ্যোগ নিতে সহায়তা করবেন বলে জানান তিনি। তিনি বলেন, “ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের জন্য ‘উল্লেখযোগ্য’ ত্রাণ সহায়তার ব্যবস্থা করা হবে যুক্তরাষ্ট্র থেকে। আমি এটা করতে বদ্ধ পরিকর।”বলে জানান তিনি।

বাইডেন আরো বলেন, ‘হামাস যাতে কোনোভাবেই আর কোন অস্ত্র মজুত করতে না পারে সেটি লক্ষ্য রাখতে হবে।’

আরসিএন ২৪ বিডি.কম / ২২ মে ২০২১
কবির চৌধুরি জয়