রাজ্য–রাজনীতিতে এখন তোলপাড় করা খবর হলো, তৃণমূল কংগ্রেসের যুব সভাপতি অভিনেত্রী সায়নী ঘোষ। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে রাজনীতি করতে চান সায়নী ঘোষ । এই কথা তিনি সংবাদমাধ্যমে জানিয়েছেন। কারণ, এই দায়িত্বটা অনেক বড়।

সায়নী ঘোষ বলেন, ‘‌দায়িত্ব দেওয়ার সঙ্গে কড়া নির্দেশও দিয়েছেন তৃণমূলনেত্রী।’‌ সুতরাং মন দিয়ে কাজ করতেই হবে। কারণ, পারফরম্যান্সই শেষ কথা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে ।

​​Saini

একুশের নির্বাচনের আগে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান। এমনকি প্রার্থী হন সায়নী ঘোষ। নির্বাচনে পরাজয় হলেও তার দৃঢ়চেতা মনোভাব ও বুদ্ধিমত্তা আকর্ষণীয় হয়ে ওঠে। যুব সমাজের কাছে তার গ্রহণযোগ্যতা অনেক রয়েছে। তাই এখন যুব সভানেত্রীর মতো গুরুদায়িত্ব দেওয়া হলো সায়নী ঘোষকে । এ বিষয়ে সংবাদমাধ্যমে সায়নী বলেন, ‘‌গুরু দায়িত্ব তো বটেই। আগেরবারও আমি বলেছিলাম মন দিয়ে রাজনীতি করতে এসেছি। দল, শীর্ষ নেতৃত্ব মনে করেছেন আমাকে দায়িত্ব দেওয়া যায়। আমি অবশ্যই তাদের বিশ্বাসের মর্যাদা রাখব।’‌

"গুগল নিউজ এ রংপুর ক্রাইম নিউজের সর্বশেষ খবর পড়তে ক্লিক করুন"
গুগল নিউজ এ রংপুর ক্রাইম নিউজের সর্বশেষ খবর পড়তে ক্লিক করুন।

বিনোদনের সকল খবর পেতে ক্লিক করুন : আরসিএন ২৪বিডি ডট কম

আগামী ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের লক্ষ্যে সংগঠনকে তৈরি করতে হবে। তাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সংগঠনকে ঢেলে সাজাতে চান । এ বিষয়টি নিয়ে সায়নী ঘোষ বলেন, ‘‌নিজের মনে যুবশক্তিকে জায়গা দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আমিও যুব। আমার নিজের পঞ্চাশ বছর বয়স নয়। যুবদের চাহিদার কথা বলার জন্য, তাদের মনে পৌঁছানোর জন্য আমাকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। আত্মশক্তি নিয়ে নতুনভাবে গড়ে তুলব। মসৃণ নয় পথটা আমার জানা আছে । ৩ বছর সময় থাকলেও তা অনেক কম। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের যোগ্য সৈনিক হিসেবে মোদি সরকারের বিরুদ্ধে লড়াই করব।’‌
তাহলে অভিনয়ের কী হবে?‌ তৃণমূল কংগ্রেস যুব সভানেত্রী বলেন, ‘‌মনোযোগ বিভক্ত হয়ে যাক আমি চাই না কখন সেটা । খুব প্রয়োজন না পড়লে অভিনয় করব না। একশো কুড়ি শতাংশ দিয়ে এখন রাজনীতিই করব। তিনি বলেন, ‘‌মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বললেন, প্রোমোশন হচ্ছে অভিষেকের। কড়া নির্দেশ দিলেন, অনেক বড় দায়িত্ব। সামনে থেকে সৈনিক হিসেবে কাজ করতে হবে। সাবধানে কাজ করতে হবে। পশ্চিমবঙ্গের যুব ইউনিটের দায়িত্ব তোমার হাতে দিলাম।’‌

জুন ০৬, ২০২১
আরসিএন ২৪বিডি ডট কম
আমাদের সকল নিউজ :RCN24bd.com